অস্ত্রোপচার লাগছে না মিরাজের

বৃহস্পতিবার , ১৭ মে, ২০১৮ at ৫:১৫ পূর্বাহ্ণ
3

মোস্তাফিজের মতো মিরাজের কাঁধের ব্যথাটিও গুরুতর ছিল। বিসিবি মেডিক্যাল বিভাগ সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ফিজিও থেরাপিতে ব্যথা না সারলে তার কাঁধে অস্ত্রোপচার করতে হবে। ফলে আসন্ন আফগানিস্তান সিরিজে তার অংশগ্রহণ কিছুটা অনিশ্চয়তার মুখে পড়েছিল। কিন্তু না, অনিশ্চয়তার মেঘ তার কেটে গেছে। বিসিবির ফিজিও বায়েজিদের অধীনে প্রায় মাস খানেক থেরাপি নেয়ার পর এখন অনেকটাই ফিট এই টাইগার স্পিনিং অলরাউন্ডার। ফলে তাকে ছুরিকাঁচির নিচে যেতে হচ্ছে না। এতে করে আফগান সিরিজের মূল স্কোয়াডে থাকা নিয়ে তার নিজের ভেতরে বেশ আত্মবিশ্বাস কাজ করছে। ‘যে জিনিসটা নিয়ে ভয় পেয়েছিলাম, সেটা কাটিয়ে উঠেছি। আমার সার্জারি লাগবে কী লাগবে না। আশা করি যে এখন যে অবস্থায় আছে, ওই রকম পর্যায়ে নেই। তারপরও চেষ্টা করছি যে শতভাগ ফিট হওয়ার জন্য। এখনো সময় আছে। জিম আছে, মারিও আছেন, উনিও সহায়তা করছেন। বায়োজিদ ভাই ছিলেন, তিনিও সহায়তা করছেন। পুরো একমাস বায়োজিদ ও দেবাশীষ স্যার দু’জন আমাকে অনেক গাইড করেছেন। এখন জাতীয় দলের ক্যাম্প চলছে। আশা করি যে ভালোই হয়েছে। আশা করি, ফিট হয়ে যাব। এখনো তো সময় আছে অনেক দিন।’ বুধবার মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমি মাঠে তিনি একথা বলেন। এদিন মিরাজ, মাশরাফিদের অনুশীলন ছিল বিকেলে। অনুশীলন চলাকালীন মিরপুর হোম অব ক্রিকেট পরিদর্শনে এলেন বাংলাদেশকে স্বপ্নের আইসিসি বিশ্বকাপে নিয়ে যাওয়া কোচ গর্ডন গ্রিনিজ। একাডেমির মাঠে এসে টাইগারদের উষ্ণ অভ্যর্থনা গ্রহণের পর তাদের সাথে কিছু সময় মত বিনিময় করেন। বাতলে দেন ভবিষ্যতের করণীয়। ১৯৯৭ সালে যে কারিগরের নির্দেশনায় বাংলাদেশের ক্রিকেটের বিশ্বকাপ স্বপ্ন পূরণ হয়েছিল তার সাথে কথা বলতে পেরে দারুণ আপ্লুত মিরাজ। ‘আসলেই ভালো লাগছে। অবশ্যই বলব যে তিনি একজন কিংবদন্তি এবং বাংলাদেশ টিমের কোচ ছিলেন। তার অভিজ্ঞতা রয়েছে। আমার কাছে ভালোই লেগেছে। সবাই অনেক কথা বলেছেন তার সঙ্গে।’ যোগ করেন মিরাজ।

x