আজিজ কাজল (মানুষের দায়)

মঙ্গলবার , ১৫ মে, ২০১৮ at ৫:৩০ পূর্বাহ্ণ
11

 : আমরা যতই নিজের পেশাগত অবস্থান, নিজের ব্যক্তিগত পরিচয় বা ভারী আইডেনটিটির বাহক হইনা কেনো পক্ষান্তরে আমি বলবো, শুধু পেশাগত প্রটোকলের মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলা ঠিক নয়। কোন পেশা কখনো একজন মানুষের একমাত্র পরিচয়, পদবি বা আইডেনটিটি নয়। সমাজে একজন মানুষের অনেকগুলো পরিচয় থাকে। কখনো আপনি একজন শিক্ষক, (যদিও কোন প্রাতিষ্ঠানিক বা একেবারে ইনভল্বড প্রফেশনকে খাটো করে কোন কিছু অবশ্যই নয়…) কখনো বাবামা, কখনো শ্রদ্ধাশীল নেতা, কখনো বড়ো ভাই, কখনো পূজনীয় ব্যক্তিত্বপ্রভাবশালী বড়ো আইকন, কবি লেখক থেকে শুরু করে যে কোন পেশার মানুষ বা ব্যক্তিত্ব। এই গুণগুলো একজন মানুষকে যথার্থ সামাজিক হওয়ারও মর্যাদা দেয়। এবার আসল কথায় আসিআপনি আপনার পেশাগত কোন জরুরি দায়িত্ব পেয়ে দূরে কোথাও গেছেন। কিংবা নিজের প্রয়োজনে আপাতত নিজের আবাস বা ঠিকানা ছেড়ে, কোন কারণে বহু দূরে অবস্থান করছেন। ধরুন হঠাৎ! কোন ইনসিডেন্ট বা দুর্ঘটনায় স্বজনবিহীন অবস্থায় আপনি হয়তো রাস্তায় একা পড়ে আছেন। খুব জরুরি মুহূর্তে আপনাকে দেখার কেউ নেই। ঐ অবস্থায় ঐ এলাকার অন্য কোন মানুষও কিন্তু আপনাকে জনৈক ব্যক্তি, কতিপয় ভদ্রলোক বা পথচারী হিসেবেই আপনার পরিচয় দেবেনসাময়িক ঐ দূরপরবাসে বা ভিন্ন কোন জায়গায় আপনাকে যেহেতু কেউ চেনে না। তাই নিজের শক্তিশালী বড়ো কোন পদবী বা আইডেনটিটিতে তখন আপনার কিছু যায় আসবে না। আপনি সংসারে নিজের বাবামা’র প্রতি বড়ো উদাসীন। আপনি আপনার স্ত্রী সন্তানসন্ততীর প্রতিও উদাসীন। নিজের রক্তসম্পর্কের ভাইবোন বা খুব কাছের স্বজন থেকে দূরে থাকলেন। সুতরাং আপনার এই তথাকথিত বড়োপরিচয়পেশা বা আইডেনটিটির মূল্য শূন্যের কোটায়। কথা হচ্ছে আপনার চলার পথও কিন্তু স্থানভেদে আপনার যথার্থ পরিচয় হতে পারে; …”আপনারে লয়ে বিব্রত রহিতে আসে নাই কেহ অবনী পরে / সকলের তরে সকলে আমরা প্রত্যেকে আমরা পরের তরে..” কামিনী রায়এই বোধ ও চিন্তাকে নিজেদের মধ্যে যথার্থভাবে লালন করাও কিন্তু একটি মহৎ ও মানবিক দায় হতে পারে। কথা হচ্ছে সব ধরনের আচরণের কর্মফল আছেই। আপনি মানুষ হিসেবে যা, অন্য মানুষ থেকেও ঠিক ততটাই পাবেন। আমাদের মানবজন্মের শুভোদয় হোক। সুতরাং যথার্থ সামাজিক মানুষের দায় নিজের উপর নেয়াও মঙ্গলজনক।

x