ইডিইউর শিক্ষার্থীদের প্রশংসায় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা

মঙ্গলবার , ১৬ জানুয়ারি, ২০১৮ at ৫:৩৬ পূর্বাহ্ণ
12

বছরজুড়ে সাফল্য। ক্লাসপরীক্ষার পাশাপাশি জাতীয় প্রতিযোগিতায়ও সমান কৃতিত্ব। এতোসব গুণ যাদের মাদকের মতো অন্ধকার জগতে পা বাড়ানোর সময় কোথায় তাদের! পরিচ্ছন্ন ও সুস্থ জীবন যাপনে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অন্যদের কাছে হতে পারেন আদর্শ। ঠিক এভাবেই কথাগুলো বলছিলেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মেট্টো উপ অঞ্চলের ডেপুটি ডিরেক্টর শামীম আহমেদ।

গতকাল সোমবার নগরীর খুলশীর পূর্ব নাসিরাবাদের ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসে আয়োজিত ‘জীবনকে ভালোবাসুন, মাদক থেকে দূরে থাকুন’শীর্ষক আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। তরুণদের মাদক গ্রহণ থেকে বিরত রাখতে ও তাদের ভেতর সচেতনতা বাড়াতে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে ইডিইউর উপাচার্য, শিক্ষকবৃন্দ ছাড়াও শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা অংশ নেন। অনুষ্ঠানে ইডিইউর শিক্ষার্থীদের সচেতন হওয়ার পরামর্শ দিয়ে শামীম আহমেদ বলেন, খেয়াল রাখবে তোমার অতি উৎসাহ কিংবা কৌতূহলই যে কোনো সময় বিপদ ডেকে আনতে পারে। পরিবারের একজন সদস্য এই পথে পা বাড়ানো মানে পুরো পরিবারই ধ্বংস হয়ে যাওয়া।

সহকারী পরিচালক জিল্লুর রহমান বলেন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কাজ কেবল মাদক আটক করা কিংবা আসামিকে শনাক্ত করা নয়। এই দুটো কাজের পাশাপাশি আমরা বিপথে যাওয়া তরুণদেরও সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনতে নানাভাবে সহযোগিতা করে থাকি। একজন বন্ধু যদি ভুল করে মাদক গ্রহণ করে তাহলে আপনার আমার দায়িত্ব তাকে সে জগত থেকে ফিরিয়ে আনা। জীবনটা অনেক সুন্দর। তা তিলেতিলে নিঃশেষ করে দেওয়া মানে হচ্ছে ব্যর্থতার কাছে হেরে যাওয়া। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইডিইউর উপাচার্য প্রফেসর মুহাম্মদ সিকান্দার খান বলেন, শিক্ষার্থীরা যাতে বিপথে না যায় সেদিকে খেয়াল রেখে পড়ালেখার পাশাপাশি তাদের নানা উৎসাহমূলক কাজে জড়িত করি আমরা। অনুষ্ঠানে ইডিইউর উপাচার্যের হাত ক্রেস্ট তুলে দেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য দেন ইডিইউর ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার সজল বড়ুয়া, অ্যাসোসিয়েট ডিন ড. মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন, . মোহাম্মদ রকীকুল কবির প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x