চাটগাঁর ছবিয়াল

ইমরান হোসাইন

মঙ্গলবার , ১ মে, ২০১৮ at ৫:২৩ পূর্বাহ্ণ
32

ছবি তোলা একটি আর্ট, একটি শিল্প আর একেকটি ছবি একেক রকম সৃষ্টি। এই আর্ট, শিল্প, সৃষ্টিগুলোর মাধ্যমে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে উন্মোচিত করা ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট মানুষদেরকে আরো প্রশিক্ষিত করতে এবং এই শিল্পের প্রসারের লক্ষ্যে এক দল তরুণ ছবিয়ালদের নিয়ে গত ২৬ মার্চ ২০১৭ যাত্রা শুরু করে চাটগাঁর ছবিয়াল।

বাংলাদেশে আরো অনেক ফটোগ্রাফি ক্লাব বা গ্রুপ রয়েছে যারা শুধু ফটোগ্রাফি সংশ্লিষ্ট কাজকর্ম করে থাকে, যা শুধু একটি গণ্ডীর মধ্যে বা এক শ্রেণির মানুষের মাঝে সীমাবদ্ধ, কিন্তু চাটগাঁর ছবিয়াল সেক্ষেত্রে ব্যতিক্রম,

শুরু থেকেই তারা ফটোগ্রাফি সংশ্লিষ্ট কাজকর্মের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রম ও করে আসছে। যা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। গত বছর দেশের উত্তর ও উত্তরপূর্বাঞ্চলে বন্যায় ২২ লাখেরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মারা গেছে প্রায় ৫০ জনেরও বেশি।

চাটগাঁর ছবিয়ালের সামাজিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বন্যার্ত মানুষের সাহায্যার্থে চট্টগ্রাম সিআরবি শিরিষতলায় গত ২৪২৫ আগস্ট ২০১৭ আয়োজন করে ২ দিনব্যাপী ফটোশুটের, যা পুরো চট্টগ্রাম জুড়ে বিপুল সাড়া ফেলে। ফেসবুক ইভেন্টের মাধ্যমে ২০ আগস্ট থেকে মানুষের আমন্ত্রণ জানানো হয় ছবি তুলতে আসার জন্য, সে আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে আসতে থাকে মানুষ, জড়ো হয় সিআরবি শিরিষ তলায়, তাদেরকে ছবি তুলে দেন চাটগাঁর ছবিয়ালের সদস্যবৃন্দ, আর সে তোলা ছবির জন্য সাধ্য অনুযায়ী মানুষ যা দান করে তা থেকে বন্য কবলিত মানুষের জন্য সংগ্রহ হয় আশাব্যঞ্জক একটি ফান্ড। পরবর্তীতে সেই টাকা পৌছে দেওয়া হয় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত দিনাজপুরের কৃষকদের হাতে।

এর পাশাপাশি ছবি প্রেমীদের জন্য নিয়মিত, নানা রকম আয়োজন থাকে চাটগাঁর ছবিয়ালের পক্ষ থেকে। কেমন আয়োজন? ‘নিয়মিত ফটোওয়ার্ক হয়, ফটো আড্ডা, আর্টিস টক, তরুণ উঠতি ফটোগ্রাফারদের জন্য ফটোগ্রাফি ভিত্তিক বিভিন্ন কর্মশালা, বললেন সংগঠনের পরিচালক মো. রুবেল।

কিন্তু এত কিছুর আয়োজন আসলে কি জন্য? আলাপের ফাঁকে আরেক পরিচালক ইমরান ইমু বলছিলেন, বর্তমানে আলোকচিত্র একটি শক্তি, আর এই শক্তির মাধ্যমে নাড়া দেওয়া যায় সমগ্র বিশ্বকে একত্রিত করা যায় এ সময়কার মানুষকেও, ফটোগ্রাফাররা তো ছবির মাধ্যমেই দেশকে তুলে ধরে বিশ্ববাসীর কাছে, দেশের কল্যাণে, দেশের মানুষের কল্যাণে। সেই ফটোগ্রাফিকেই আমরা বেছে নিয়েছি বাংলাদেশকে উন্মোচিত করার হাতিয়ার হিসেবে, এবং সেই হাতিয়ারে শক্তি ইতোমধ্যে আমরা উপলদ্ধি করতে পরেছি, আমাদের সদস্যরা ইতোমধ্যে অর্জন করেছে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বহু পুরস্কার।

গ্রুপের আরেক পরিচালক মিঠুন ঘোষ মনে করেন, এভাবে যদি অন্যান্য ফটোগ্রাফি ক্লাব বা গ্রুপগুলোও ফটোগ্রাফির পাশাপাশি সামাজিক কার্যক্রম পরিচালনা করে তাহলে ফটোগ্রাফির প্রতি মানুষের যদি কোন ভুল ধারণা থাকে, সেটা অনেকাংশে হ্রাস পাবে ও ফটোগ্রাফারদের প্রতি সবার শ্রদ্ধা ও ভালবাসা জন্মাবে।

সম্প্রতি বাংলাদেশি ফটোগ্রাফার্স গ্রুপ (ঈঊঐে) কর্তৃক চাটগাঁর ছবিয়ালকে তাদের পরিশ্রমী, মানবিক উদ্যমী কর্মের অবদান ও কীর্তির স্বীকৃতিস্বরূপ ২০১৭ সালের ফটোগ্রাফি গ্রুপ পরিচালনার ক্ষেত্রে বিশেষ অনুপ্রেরণা পদক ৃখকওকইূঊঅূঐীঋইঊঋৗওঔঅ েপুরস্কারে ভূষিত করেছে।

বর্তমানে একজন উপদেষ্টা, পনের জন পরিচালক, ও ফেসবুকে প্রায় ছয়’হাজার সদস্য নিয়ে সাংগঠনিক ফটোগ্রাফি চর্চায় এগিয়ে চলেছে চাটগাঁর ছবিয়াল।

x