পাহাড়ি ছড়ার ভাঙনে বিলীন হচ্ছে রাইখালী কৃষি গবেষণা কেন্দ্র

কাজী মোশাররফ হোসেন, কাপ্তাই

বৃহস্পতিবার , ২২ মার্চ, ২০১৮ at ৪:১১ পূর্বাহ্ণ
10

কাপ্তাই উপজেলায় অবস্থিত পাহাড়ি কৃষি গবেষণা কেন্দ্র ভাঙনের কবলে পড়ে বিলীন হচ্ছে। ছড়ার তীরবর্তী বিপুল পরিমান জমি ইতিমধ্যে ভেঙ্গে পড়েছে। অনেক স্থাপনাও বিলীন হয়ে গেছে। প্রতি বছর ছড়ার পাশে ভাঙ্গন দেখা দেয়। কৃষি গবেষণা কেন্দ্র কর্তৃপক্ষ নিজস্ব উদ্যোগে বিভিন্নভাবে চেষ্টা করেও ভাঙ্গন রোধ করতে পারেনি বলে জানা গেছে। ভাঙ্গন রোধ করতে না পারলে পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ হবে বলেও আশঙ্কা করা হচ্ছে।

পাহাড়ি কৃষি গবেষনা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মোঃ আলতাফ হোসেন বলেন, ছড়ার কারণে গবেষণা কেন্দ্রের অনেক অংশ ইতিমধ্যে বিলীন হয়েগেছে। ড. আলতাফ এই প্রতিনিধিকে গবেষণা কেন্দ্রের একটি ভাঙ্গন কবলিত এলাকা সরেজমিন পরিদর্শন করতে নিয়ে যান। সেখানে পাকা একটি ভবনের অংশ বিশেষ দেখিয়ে তিনি বলেন, এই স্থানে গবেষণা কেন্দ্রের একটি পাকা ভবন ছিল। পাহাড়ি ছড়ার কবলে পড়ে ভবনটি বিলীন হয়ে গেছে। শেষ চিহ্ন হিসেবে এখন এর অংশ বিশেষ দেখা যাচ্ছে।

. আলতাফ হোসেন বলেন, প্রতি বছর বৃষ্টির সময় ভাঙ্গনের মাত্রা বেড়ে যায়। ভারী বৃষ্টির সময় ছড়ার উপর দিয়ে প্রবল বেগে পানির স্রোত বয়ে যায়। ভারী বৃষ্টির সময় স্রোতের মাত্রা এতটাই তীব্র থাকে যে ঐ সময় একটি ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হয়। কৃষি গবেষণা কেন্দ্রের উপর দিয়ে পাহাড়ি ছড়ার তিনটি অংশ বয়ে যায় বলে জানা গেছে। একই ছড়া ঘুরে ফিরে তিন স্থানের উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। পানির প্রবল স্রোতের সাথে ছড়ার দুই পাশের মাটি ভেঙ্গে নিয়ে যায়। ভাঙন রোধে গবেষণা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নিয়েও সুফল পাওয়া যায়নি বলে জানা গেছে।

ভাঙন বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে বলেও জানা গেছে। গবেষনা কেন্দ্রের পক্ষ এই ভাঙ্গন রোধ করা সম্ভব নয় বলে কর্তৃপক্ষ জানান। ভাঙ্গন রোধে পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহায়তা নিতে হবে। বিষয়টি পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবহিত করা হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি বলে সংশিহ্মষ্ট কর্মকর্তারা জানান।

x