নবায়নযোগ্য জ্বালানি সহজলভ্য করতে উন্নত দেশগুলোর উন্নত প্রযুক্তি তৈরি করা উচিত

থাইল্যান্ডে জ্বালানি উপদেষ্টা তৌফিক

মৃদুল বড়ুয়া, ব্যাংকক (থাইল্যান্ড) থেকে

বুধবার , ৪ এপ্রিল, ২০১৮ at ৭:২২ অপরাহ্ণ
99

বাংলাদেশের জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেছেন, “বিদ্যুতের অপচয় নিয়ন্ত্রণের চাহিদার দিকে নজর রেখে উন্নত দেশগুলোর অধিকতর ‘শক্তি দায়িত্বশীলতা’ প্রদর্শন এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর কাছে নবায়নযোগ্য জ্বালানি সহজলভ্য করার জন্য উন্নত প্রযুক্তি তৈরি করা উচিত।” তিনি আজ বুধবার (৪ এপ্রিল) সকালে থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে এশিয়ান এন্ড প্যাসিফিক এনার্জি ফোরামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বলেন, “শেখ হাসিনার সরকার গত নয় বছরে বিদ্যুৎ উৎপাদন চারগুণ বাড়িয়ে জ্বালানি নিরাপত্তায় নজিরবিহীন সাফল্য লাভ করেছে।”
পঞ্চাশ লাখ গৃহস্থালী সৌর বিদ্যুৎ সিস্টেম সহ ২০০৯ সাল থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন ৪৫% থেকে ৯০%-এ উন্নীত করায় ফোরামে বাংলাদেশের উচ্চ প্রশংসা করা হয়। এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের ২০টিরও বেশি দেশের জ্বালানি মন্ত্রীরা এ ফোরামে অংশ নেন। ফোরামের লক্ষ্য ছিল টেকসই উন্নয়নের জন্য এজেন্ডা ২০৩০-এর জন্য বর্ধিত জ্বালানি নিরাপত্তা ও টেকসই জ্বালানির জন্য এসডিজি৭-এর কার্যকর বাস্তবায়নে প্রতিশ্রুত হওয়া।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি এবং ইউএনইএসসিএপি (UNESCAP)-এর নির্বাহী সম্পাদক সামশাদ আখতার, থাইল্যান্ডের পররাষ্ট্র বিষয়ক উপ-মন্ত্রী ভিরাসাকদি ফুত্রাকুল এবং রাশিয়ার জ্বালানি উপ-মন্ত্রী কিরিল মলোদসভ।
তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ২য় এশিয়ান এন্ড প্যাসিফিক এনার্জি ফোরামে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। এশিয়ান এন্ড প্যাসিফিক এনার্জি ফোরাম হলো বর্ধিত জ্বালানি নিরাপত্তা ও জ্বালানির টেকসই ব্যবহার বিষয়ে মন্ত্রী পর্যায়ের একটি প্ল্যাটফর্ম।
অনুষ্ঠানের আগে বাংলাদেশের জ্বালানি উপদেষ্টা থাইল্যান্ডের জ্বালানি মন্ত্রী ড. সিরি জিরাপংফানের সাথে জ্বালানি মন্ত্রণালয়ে সাক্ষাত করেন। এসময় তারা জ্বালানি খাতে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা করেন। দু’পক্ষই জ্বালানি খাতে সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করতে সম্মত হয়। থাই জ্বালনি মন্ত্রী সকলের জন্য টেকসই জ্বালানি নিশ্চিত করতে আঞ্চলিক সহযোগিতার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ইউএনইএসসিএপি (UNESCAP)-এর নির্বাহী সম্পাদক সামশাদ আখতারের সাথেও তার অফিসে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। সাক্ষাতের সময় সামশাদ আখতার এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোর জন্য জ্বালানি খাতে নবায়নযোগ্য ও টেকসই জ্বালানির জন্য উন্নততর প্রযুক্তির ব্যাপারে সম্ভাব্যতা যাচাই করার ব্যাপারে সম্মত হন।
সাক্ষাতের সময় থাইল্যান্ডে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও ইউএনইএসসিএপি (UNESCAP)-এর স্থায়ী প্রতিনিধি সাইদা মুনা তাসনীম এবং অর্থনীতি সম্পর্কিত বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

x