প্রেমের বিয়ের ৬ মাস পর স্বামীর আত্মহত্যা

পটিয়া প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ১৭ মে, ২০১৮ at ৪:৫৮ পূর্বাহ্ণ
459

দীর্ঘদিনের চুকিয়ে চুকিয়ে প্রেম। প্রেমবন্ধনের পর দুইজনের মধ্যে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ। কিন্তু আজীবনের সে বন্ধন ৬ মাসও টিকলো না। বিয়ের তিন মাস পর থেকে স্বামীস্ত্রীর মধ্যে শুরু হয় নানা ধরনের মতবিরোধ। তিনমাস পর স্বামীর ঘর ছেড়ে বাপের বাড়িতে চলে যায় স্ত্রী। সে মতবিরোধ থেকে স্ত্রী ও শ্বশুরালয়ের লোকজনের সাথে অভিমান করে অবশেষে বিষপানে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো রাজমিস্ত্রি শ্রমিক বাদশা (২০)। সে কর্ণফুলী উপজেলার চরপাথরঘাটা ইউপির ওয়াজি বাপের গোষ্ঠির বাড়ির নুর আহমদের পুত্র। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ তার লাশটি উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার সকালে বাদশা হঠাৎ মাথা ঘুরে মাটিতে পড়ে গেলে পরিবারের লোকজন এসে তার মুখে বিষের গন্ধ পায়। এ সময় তাকে উদ্ধার করে দ্রুত চমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে মৃত্যু হয়।

চরপাথরঘাটার ১নং ওয়ার্ড ইউপি মেম্বার মো. সাইফুদ্দীন জানান, একই উপজেলার চরলক্ষ্যা ইউনিয়নের নোয়াব মিয়ার মেয়ে চুমকি আকতারের সাথে প্রেমের সম্পর্কের পর বাদশার সাথে গত ৬ মাস পূর্বে বিয়ে হয়। ২০১৭ সালের ১৩ জানুয়ারি কাবিন হলেও বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা হয় গত ৬ মাস পূর্বে। বিয়ের তিন মাস পর স্ত্রী চুমকি আকতার স্বামী ও স্বামীর পরিবারের লোকজনের সাথে বনিবনা না হওয়ায় তার বাপের বাড়ি চলে যায়। এরপর স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে এটা সমাধানে কয়েক দফায় বৈঠক হয়। বৈঠকে মেয়ের পক্ষ থেকে কাবিন ভেঙে ফেলার প্রস্তাব দেয়া হয়। এতে রাজি হয়নি স্বামী বাদশা ও তার পরিবার। এ ঘটনা নিয়েই মূলত বাদশা বিষপান করেছেন।

এ বিষয়ে কর্ণফুলী থানার ওসি সৈয়দুল মোস্তফা জানান, তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে।

x