মুক্তি পেয়েছেন মালয়েশিয়ার আনোয়ার ইব্রাহিম

বৃহস্পতিবার , ১৭ মে, ২০১৮ at ৫:৩৪ পূর্বাহ্ণ
60

মালয়েশিয়ার কারাবন্দি নেতা ও প্রাক্তন উপপ্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিম নিঃশর্ত ক্ষমা পাওয়ার পর মুক্তি পেয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে তার সক্রিয় রাজনীতিতে ফেরার পথ সুগম হলো।

আনোয়ার ইব্রাহিম রাজধানী কুয়ালালামপুরের যে হাসপাতালে বন্দি অবস্থায় চিকিৎসাধীন ছিলেন বুধবার সেখান থেকে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স ও বিবিসি। মালয়েশিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ আনোয়ার ইব্রাহিমকে নিঃশর্ত ক্ষমা করে দেওয়ার জন্য দেশটির রাজার কাছে আবেদন করেছিলেন। সেটি গৃহিত হওয়ার পর মুক্তি পেলেন আনোয়ার ইব্রাহিম।

বুধবার স্থানীয় সময় বেলা ১১টার দিকে তিনি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসেন। এ সময় তাকে ঘিরে ছিলেন পরিবারের সদস্য, আইনজীবী ও কারারক্ষীরা। ৭০ বছরের আনোয়ার ইব্রাহিমের পরনে ছিল কালো স্যুট ও সাদা শার্ট। হাসপাতালের বাইরে এসে তিনি অপেক্ষমান সমর্থকদের প্রতি স্মিতহাস্যে হাত নাড়েন এবং মালয়েশিয়ার রাজা ইয়াং ডিপারতুয়ান আগংয়ের সঙ্গে দেখা করতে গাড়িতে উঠে রাজপ্রাসাদের দিকে রওনা হন। রাজা আগেই আনোয়ার ইব্রাহিমকে মুক্তির পর তার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য রাজপ্রাসাদে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। এর আগে মঙ্গলবার জেল থেকে আনোয়ারের মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও পরে তা স্থগিত করা হয়। বুধবার সকালে রাজকীয় ক্ষমা বোর্ডের মিটিংয়ে তার ক্ষমার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। প্রসঙ্গত, এক সময়ের সম্ভাবনাময় এ নেতা সরকারের সাথে বিরোধের জের ধরে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর জেলে যান। ২০০৪ সালে মাহাথির মোহাম্মদই সমকামিতা ও দুর্নীতির অভিযোগ তুলে আনোয়ার ইব্রাহিমকে উপপ্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে বরখাস্ত করে কারাগারে পাঠিয়েছিলেন। এরপর ছয় বছর কারাভোগ শেষে মুক্তি পেলেও আনোয়ারকে ২০১৫ সালে আবারো একই অভিযোগে কারাগারে পাঠান তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। তবে আনোয়ার দাবি করে আসছিলেন, তার এ জেল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। মাহাথিরকে ক্ষমতা থেকে নামাতে ২০ বছর আগে পাকাতান হারাপান আন্দোলন শুরু করেছিলেন আনোয়ার। শেষ পর্যন্ত মাহাথির প্রতিদ্বন্দ্বী আনোয়ারের সঙ্গে মিলে সে দেশের রাজনীতির ইতিহাসই পাল্টে দিলেন। জালিয়াতি করে রাষ্ট্রীয় তহবিল থেকে অনেক অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ ওঠা নাজিবকে ক্ষমতা থেকে সরাতে আনোয়ারের সঙ্গে জোট বেধে নির্বাচন করেন ৯২ বছরের মাহাথির। এরপর গত সপ্তাহে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে পাকাতান হারাপান (অ্যালায়েন্স অব হোপ) পার্লামেন্টের ২২২ আসনের মধ্যে ১১৩টি জয় পেয়ে সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে।

x