রোবটের ব্যবহার বৃদ্ধিতে ঝুঁকিতে আফ্রিকা

বুধবার , ২১ মার্চ, ২০১৮ at ৫:৩৪ পূর্বাহ্ণ
17

কর্মক্ষেত্রে রোবটের ব্যবহার মানুষের চাকুরির জন্য হুমকি এমন শঙ্কার কথা শোনা গিয়েছে বহুবার। এর পক্ষে বিপক্ষে অনেক মতামতও এসেছে। ওভারসিস ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট (ওডিআই)-এর এক প্রতিবেদনে আবারও একই শঙ্কার কথা উঠে এসেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, দুই দশকেরও কম সময়ের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কারখানাগুলোতে রোবটের ব্যবহার আফ্রিকান কর্মীর তুলনায় সস্তা হবে। খবর বিডিনিউজের।

এর আগে অনেকবারই বলা হয়েছে স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থার ব্যবহারে চাকুরি কমবে, কারণ উৎপাদকরা সবল অর্থনীতির দিকে ঝুঁকছেন। যদিও কিছু বিশ্লেষক বলেছেন গরীব দেশগুলো এতে কম প্রভাবিত হবে। কিন্তু এবারে অন্য কথাই বলছে ওডিআই।

আফ্রিকার মতো গরীব দেশেগুলোর ওপর রোবট এবং অটোমেশানের প্রভাব পড়বে বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে ওডিআই। কিন্তু এই পরিবর্তনের ধাক্কা লাগার আগে নিজেদের প্রস্তুত করার সময় আছে আফ্রিকান দেশগুলোর। ওডিআইয়ের জেষ্ঠ্য গবেষণা কর্মকর্তা কারিশমা বাংগা বলেন, “উৎপাদন থেকে আফ্রিকান দেশগুলোর সরে যাওয়া উচিত নয়, এর বদলে ইন্টারনেটের ব্যবহার বাড়িয়ে, প্রযুক্তিগত দক্ষতায় বিনিয়োগ এবং প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের প্রচারণার মাধ্যমে তাদের প্রস্তুত নেওয়া উচিত। ভালোভাবে প্রস্তুত হলে অটোমেশান আফ্রিকান দেশগুলোর জন্য পুরস্কার হতে পারে।” ডিজিটালাইজেশন অ্যান্ড ফিউচার অফ ম্যানু ফ্যাকচারিং ইন আফ্রিকা শীর্ষক ওডিআইয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০৩৪ সালের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আসবাবপত্র উৎপাদন, রোবট চালানোর খরচ এবং ৩ডি প্রিন্টার কেনিয়ার মজুরির চেয়ে সস্তা হবে। প্রতিবেদনে আরও বলা হয় ২০৩৮ এবং ২০৪২ সালের মধ্যে ইথিওপিয়ায় দেশটির কর্মীর চেয়ে রোবোটিক অটোমেশান সস্তা হবে।

x