নিউ ইয়র্কের ম্যানহাটনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মালিকানাধীন ট্রাম্প টাওয়ারের সামনে ইফতার করেছেন প্রায় শতাধিক মুসলিম ও তাদের মিত্ররা। ইসলাম ও বিদেশীদের বিষয়ে ট্রাম্পের অহেতুক ভীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে দুটি অধিকার আন্দোলন গোষ্ঠীর উদ্যোগে বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে ব্যস্ত সড়কে এ আয়োজন করা হয় বলে জানিয়েছে সিএনএন। খবর বিডিনিউজের।

এমপাওয়ার চেঞ্জ ও নিউ ইয়র্ক স্টেট ইমিগ্র্যান্ট অ্যাকশন ফান্ড আহ্বানে করা অভিনব এ প্রতিবাদে কোনো শ্লোগান দেওয়া হয়নি, কোনো ব্যানারও বহন করা হয়নি। উপস্থিত সবাই ইফতারে অংশ নিয়েছেন এবং মুসলিমরা মাগরিবের নামাজ আদায় করেছেন। এ সময় নিউ ইয়র্ক শহরের কেন্দ্রস্থল ম্যানহাটনের ফিফথ অ্যাভিনিউতে ট্রাম্প টাওয়ারের প্রবেশ পথে বিপুল সংখ্যক পুলিশ দাঁড়িয়ে ছিল। তাদের থেকে কয়েক কদম দূরে নিরাপত্তা বেষ্টনির অপর পাশে মুসলিমরা ও তাদের সমর্থকরা বসে ইফতার করছিল।

ইফতারের আগে নিউ ইয়র্ক স্টেট ইমিগ্যান্ট অ্যাকশন ফান্ডের উপপরিচালক আনু যোশি বলেন, ‘প্রতিদিন আমেরিকান মুসলিমরা গোঁড়ামি ও ঘৃণার শিকার হচ্ছে। কাজের ক্ষেত্রে, স্কুলে, চাকরি চাইতে গিয়ে, ধর্ম পালন করতে গিয়ে এমনকি জীবনযাপন করতেও গিয়েও হয়রানির শিকার হচ্ছেন তারা।’

এখানে উইম্যান মার্চের সহপ্রতিষ্ঠাতা ফিলিস্তিনিআমেরিকান লিন্ডা সারসৌরও বক্তব্য রাখেন। মুসলিম ও কৃষ্ণকায়দের ওপর ‘ভর করেই’ যুক্তরাষ্ট্র গঠিত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। সংহতি জানাতে অন্যান্য অনেক ধর্মের লোক যুক্তরাষ্ট্রে রমজানের ষষ্ঠ দিনে আয়োজিত এই ইফতারে অংশ নেয়।

LEAVE A REPLY