আজাদী প্রতিবেদন

চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা সমস্যা দীর্ঘদিনের এবং এই সমস্যা নিরসন স্থানীয়ভাবে সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। গতকাল মঙ্গলবার বিকালে নগরীর বাকলিয়ার কালামিয়া বাজারে একটি কমিউনিটি সেন্টারে বাকলিয়া জনকল্যাণ সমিতি আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, কেন্দ্রীয় উদ্যোগই এর সমাধান করতে পারে। আমি এই ব্যাপারে উদ্যোগী হব।

তিনি আরো বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসনের জন্য সিটি কর্পোরেশন, ওয়াসা, সিডিএর মাস্টারপ্ল্যানগুলো সমন্বয়ের অভাবে বাস্তবায়িত হয়নি। মাস্টারপ্ল্যান করতে গিয়ে বড় অংকের সরকারি অর্থ অপচয় হয়েছে। চাক্তাই খাল সংস্কারের জন্য প্রতি বছর কিছু না কিছু বরাদ্দ থাকে। এই বরাদ্দ ব্যয় হলেও ফল পাওয়া যায় না। ব্যারিস্টার নওফেল বলেন, এবার অতি বর্ষণে এই সমস্যা ভয়াবহ আকার নিয়েছে। এর অনেক কারণের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে অপরিকল্পিত নগরায়ণ। রাস্তার পাশে বহুতল ভবনের পাইলিংয়ের মাটিতে খালনালানর্দমা ভরাট হয়ে যাওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতে নগরীতে হাঁটু সমান পানি হয়। তিনি বলেন, জনগণের সম্পৃক্ততা ছাড়া কোনো উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সফল করা সম্ভব হয় না। উন্নয়ন পরিকল্পনায় জনগণের চাহিদা ও আকাঙক্ষা সঠিকভাবে প্রতিফলিত হলে তা জাতির জন্য সুফল বয়ে আনে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি বলেন, রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক দিক অধিক গুরুত্ব দেন বলে বিগত কাউন্সিলে আমাকে সহ তিনজনকে তিনি কেন্দ্রীয় কমিটিতে সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। তিনি চট্টগ্রামকে অন্তর দিয়ে ভালোবাসেন। চট্টগ্রামের উন্নয়নের জন্য সিডিএর মাধ্যমে তিনি একাধিক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছেন। এসব প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হলে নগরীর বর্তমান চিত্র পাল্টে যাবে। তবে যেকোনো উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য সরকারের সেবামূলক সংস্থার মধ্যে সুসমন্বয় প্রয়োজন। এছাড়া স্থানীয় জনগণের সেবার মান বৃদ্ধি ও নাগরিক সুবিধার্থে এলাকাভিত্তিক উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে।

নওফেল বলেন, আমি কোনো রাজনৈতিক অভিপ্রায় নিয়ে এই সভায় আসিনি। এলাকাবাসীর সমস্যা শুনে তা সমাধানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে ধরনা দেব। আমি এও জানি, বাকলিয়া দীর্ঘদিন ধরে অবহেলিত। এই অবহেলার অবসান হবেই।

তিনি বলেন, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারাকে বেগবান করতে হবে। দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই হবে চূড়ান্ত।

প্রশ্নোত্তর পর্বে বলেন তিনি, আমাদের রাজনীতি হবে জনবান্ধব। আমাদেরকে ভোটারদের কাছে যেতে হবে। কোনো প্রতিবেশী যদি আমাদের দল নাও করেন, তবুও তাদের সুখদুঃখের সাথী হতে হবে। এলাকায় স্কুলকলেজের অভাব রয়েছে। সরকারিভাবে স্কুলকলেজ প্রতিষ্ঠায় শিক্ষামন্ত্রীকে অনুরোধ জানাব।

সভায় সভাপতিত্ব করেন বাকলিয়া জনকল্যাণ সমিতির আহ্বায়ক ইউনুছ কোম্পানী। সাবেক কাউন্সিলর শহিদুল আলমের সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন এলাকার রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এদিকে অনুষ্ঠানের শেষ দিকে দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। সভায় আসা দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে এই ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সহায়তায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এই ব্যাপারে মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি আজাদীকে বলেন, এটা বাইরের ঘটনা। ভেতরে কিছু হয়নি। কোনো অশুভ মহল পরিস্থিতি ঘোলাটে করার জন্য এই ঘটনা ঘটাতে পারে।

LEAVE A REPLY