শাস্তিটা নগদেই পেলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) দল বরিশাল বুলসের অন্যতম কর্ণধার এম এ আওয়াল চৌধুরী ভুলু। দু’দিন আগে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুশফিকুর রহিমকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে ইতোমধ্যে শোকজ হয়েছেন তিনি। এমনকি ফ্র্যাঞ্চাইজি বাতিলের সিদ্ধান্তও নিতে পারে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দেশে ফেরার পর ইস্যুগুলো নিয়ে আলোচনায় বসবে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।

বিপিএলের সর্বশেষ আসরে বরিশাল বুলসের নেতৃত্ব দেয়া মুশফিকের সমালোচনা করে আবদুল আউয়াল বলেছিলেন, মুশফিক দলের ভেতর গ্রুপিং করেন। সে একজন দায়িত্বজ্ঞানহীন অধিনায়ক। তবে এমন মন্তব্য করে পার পাননি বিসিবির এই পরিচালক। ইতিমধ্যে শোকজ করা হয়েছে এম এ আওয়াল ভুলুকে। সদুত্তর দিতে না পারলে কঠোর শাস্তি হতে পারে বিসিবির পরিচালকের। প্রয়োজনে ফ্র্যাঞ্চাইজি বাতিলের সিদ্ধান্তও নিতে পারে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। এখানেই শেষ নয়, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন দেশে ফেরার পর ইস্যুগুলো নিয়ে আলোচনায় বসবে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। তবে তার আগেই শোকজের জবাব দিতে বলা হয়েছে বরিশাল বুলসের এই কর্ণধারকে।

এর আগে মুশফিককে নিয়ে মন্তব্য করার পাশাপাশি জাতীয় দলের এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানের অধিনায়কত্ব নিয়ে অনেক সমালোচনা করেন ভুলু। কিন্তু এমন মন্তব্য মেনে নিতে পারেননি মুশফিক। শনিবার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবাদ করার পাশাপাশি বিসিবির প্রধান নির্বাহী ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিকের কাছে মৌখিক বিচার দেন। মুশফিকের বিচারের প্রেক্ষিতে শোকজের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।

LEAVE A REPLY