স্পোর্টস ডেস্ক

ইউরোপের ক্লাব ফুটবলের মৌসুম শুরু হতে আর খুব বেশি দেরি নেই। এরই মধ্যে ইউরোপের সেরা সব ক্লাব নিজেদের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। আর সে প্রস্তুতির মিশনেও দেখা হয়ে গেল বিশ্ব ক্লাব ফুটবলের দুই সেরা প্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ এবং বার্সেলোনার। দু দলের এই মহারণে জয়টা বরাবরের মতই বার্সেলোনার। হোক না মৌসুম শুরুর আগে প্রস্তুতিমূলক টুর্নামেন্ট। তারপরও রিয়াল মাদ্রিদবার্সেলোনা লড়াই মানেই যে রোমাঞ্চকর ৯০ মিনিট তা দেখা গেল আরেকবার। যুক্তরাষ্ট্রে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে আক্রমণপাল্টা আক্রমণে ভরপুর ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের ৩২ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। বার্সার বিপক্ষে জিততে যেন ভুলেই গেছে রিয়াল মাদ্রিদ। যুক্তরাষ্ট্রে আগের দুই ম্যাচে বার্সেলোনার জয়ের নায়ক ছিলেন নেইমার। তবে এ ম্যাচে গোল পেয়েছেন মেসি। নেইমার গোল পাননি। তবে রিয়ালকে ঠিকই ভুগিয়েছেন তিনি। মায়ামির হার্ড রক স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে দুই দলই নামে শক্তিশালী একাদশ নিয়ে। বার্সেলোনার আক্রমণে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেসের সঙ্গে যথারীতি ছিলেন পিএসজিতে যাওয়া নিয়ে ‘দোটানার’ মধ্যে থাকা নেইমার। বিশ্রামের জন্য ও ব্যক্তিগত কারণে অবশ্য টুর্নামেন্টেই নেই ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। করিম বেনজেমা ও গ্যারেথ বেলের সঙ্গে তাই রিয়ালের আক্রমণভাগে খেলার সুযোগ পান মার্কো আসেনসিও। স্পেনের বাইরে মৌসুম শুরুর আগের এই ক্লাসিকোতে এগিয়ে যেতে তিন মিনিট সময় নিয়েছে বার্সেলোনা। লুকা মদ্রিচকে কাটিয়ে নেওয়ার পর মেসির শট রাফায়েল ভারানের গায়ে লেগে দিক পাল্টে জালে জড়ায়। গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের কিছু করার ছিল না। এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। চার মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করে বার্সেলোনা। বাঁ দিক থেকে নেইমারের নিচু ক্রস সুয়ারেস ছেড়ে দিলে জোরালো শটে বল জালে পাঠান ইভান রাকিতিচ। চার মিনিটে দুই গোল হজম করে পিছিয়ে পড়া রিয়াল ধাক্কা সামলে ম্যাচে ফিরতে বেশি সময় নেয়নি । ষোড়শ মিনিটে ডিবক্সের প্রান্ত থেকে ইয়েসপার সিলেসেনকে ফাঁকি দেন মাতেও কোভাসিচ। ব্যবধান কমায় রিয়াল। খেলার ১৯ মিনিটে বল নিয়ে ডিবক্সে ঢুকে পড়া বেনজেমার বাঁ পায়ের শট ডান পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে গেলে সমতা ফেরেনি। ১০ মিনিট পর সহজ একটি সুযোগ নষ্ট হয় বার্সেলোনারও। ডান দিক থেকে সুয়ারেসের বাড়ানো বল ধরে নেইমারের নেওয়া শট ডান পোস্টের সামান্য বাইরে দিয়ে যায়। ৩৬ মিনিটে জিনেদিন জিদানের ভরসার প্রতিদান দেন আসেনসিও। পাল্টা আক্রমণে মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে এগিয়ে পাস দিয়েছিলেন কোভাসিচকে। ডিবক্সে বল ফেরত পেয়ে কাছের পোস্ট দিয়ে নিচু শটে সহজেই সিলেসেনকে পরাস্ত করেন স্পেনের এই খেলোয়াড়।

যুক্তরাষ্ট্রে এই ম্যাচগুলো খেলার মূল উদ্দেশ্য প্রস্তুতি হলেও বিরতিতে মেসিনেইমারসুয়ারেসকে বদলাননি এরনেস্তো ভালভেরদে। তার দলও এগিয়ে যায় পাঁচ মিনিটের মধ্যে। বাঁ দিক থেকে নেইমারের মাপা ফ্রিকিকে পা বাড়িয়ে বল জালে পাঠিয়ে দেন জেরার্দ পিকে।

পাঁচ মিনিট পর আবারও গোলের সুযোগ নষ্ট করেন গত দুই ম্যাচে তিনবার লক্ষ্যভেদ করা নেইমার। মেসির বাড়ানো বল ধরে সামনে থাকা নাভাসকে কাটাতে গিয়ে করেন গড়বড়। ৫৮ মিনিটে সুযোগ নষ্ট করাদের তালিকায় নাম লেখান সুয়ারেস। ডান দিক থেকে বাড়ানো বল ফাঁকায় পেলেও গোলরক্ষককে ফাঁকি দিতে পারেননি উরুগুয়ের এই ফরোয়ার্ড। সুয়ারেসের শট ঠেকানোর পর কর্নার থেকে বল পেয়ে নেওয়া সামুয়েল উমতিতির শটও দারুণ দক্ষতায় ফেরান নাভাস। পরক্ষণেই পাল্টা আক্রমণে কাছ থেকে ইসকোর নেওয়া শট ফিরিয়ে দেন সিলেসেন। এরপর দুই কোচই তারকা খেলোয়াড়দের উঠিয়ে নিলে ম্যাচের গতি কমে যায়। এর মধ্যে ৮০ মিনিটে ইসকোর কোনাকুনি শট বাঁয়ে ঝাঁপিয়ে ফিরিয়ে রিয়ালকে সমতায় ফিরতে দেননি সিলেসেন। নতুন কোচ হিসেবে ভালভেরদের যাত্রাটা হলো দুর্দান্ত। টুর্নামেন্টে তিনটি ম্যাচই জিতে ট্রফি জিতেছে বার্সেলোনা। অন্যদিকে কোনো জয় ছাড়াই টুর্নামেন্ট শেষ করলো লা লিগা চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ।

LEAVE A REPLY