চাকরি না ছাড়ায় পাকিস্তানের করাচিতে স্ত্রীর শিরশ্নেদ করেছেন স্বামী। করাচির সাদ্দার ডিভিশনের মঙ্গা মন্ডি এলাকায় রোববার নির্মম এ ঘটনা ঘটেছে। পারিবারিক সম্মান রক্ষায় ওই ব্যক্তি স্ত্রীকে চাকরি ছাড়ার আহ্বান জানালেও এতে সাড়া দেয়নি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে স্ত্রীর শির্নেদ করেন তিনি।

পুলিশ বলছে, নিহত ৩৭ বছর বয়সী নাসরিন; তিন সন্তানের মা। সাদ্দার ডিভিশনের শ্যামকে ভাট্টিয়ান এলাকার একটি বাড়িতে তার মরদেহ পাওয়া যায়। এসময় তার শরীর থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন ছিল। খবর অনলাইনের।

খুনের তথ্য পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা পুলিশের সঙ্গে ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের জবানবন্দি নিয়েছে পুলিশ। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ শহরের একটি হাসপাতালে পাঠানো হয়।

সাদ্দার ডিভিশনের পুলিশ সুপার (এসপি) মাহের মুমতাজ বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ওই নারীকে তার স্বামী আফরাহিম সম্মান রক্ষার নামে হত্যা করেছে বলে জানা গেছে। তিনি বলেন, রাইউইন্ড এলাকার একটি পোশাক তৈরির কারখানায় চাকরি করতেন ওই নারী। কিন্তু তার স্বামী এটি পছন্দ করতেন না এবং তাকে চাকরি ছাড়তে বলেছিলেন। স্বামীর বিরোধিতা সত্ত্বেও, নাসরিন চাকরি অব্যাহত রেখেছিলেন। পুলিশের এই কর্মকর্তা নিহত নারীর সন্তানের বরাত দিয়ে বলেন, বাড়িতে ঘুমিয়ে ছিলেন ওই নারী। এ সময় তার স্বামী রুমের দরজা বন্ধ করে দা দিয়ে কুপিয়ে শির্নেদ করে।

এ ঘটনার পর ওই ব্যক্তি বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। পরে তার প্রতিবেশিদের সহায়তায় রুমের দরজা খুলে নাসরিনের মরদেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এসময় শরীর থেকে তার মাথা বিচ্ছিন্ন ছিল। অভিযুক্তকে ধরতে পুলিশের দুটি দল কাজ শুরু করেছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY