নগরজীবনে বর্ষাকে উপভোগ করার কোনো সুযোগ নেই। বরঞ্চ বর্ষা এখন নগর জীবনের নরক যন্ত্রণা। একসময়কার বর্ষার নান্দনিক রূপ এখন শুধু এই বইপুস্তকে কবিদের লেখায় শোভা পাচ্ছে। শিল্পীদের গাওয়া বর্ষার হৃদয় ছোঁয়া গান প্রেমিক হৃদয়ে এখনো অনুররণ তুলে। কিন্তু বর্ষার সেই, রূপ, সৌন্দর্য্য এখন বিলীনের পথে। বন, পাহাড়, নদী, বৃক্ষ ধ্বংস করে আমরাই আমাদের এই সুন্দর ধরাকে নরকে পরিণত করেছি। এতো কিছুর পরও বর্ষা বাঙালি জীবনের প্রেম ও বিরহের সমার্থক। ইট পাথরের এই শহরে শ্রাবণ সন্ধ্যা আয়োজন করে মাসিক আন্দরকিল্লা শহরবাসীকে নষ্টালজিয়ায় আক্রান্ত করেছে।

গত ১০ আগস্ট, বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে মাসিক আন্দরকিল্লা আয়োজিত ‘সৃজনে শ্রবণে শ্রাবণসন্ধ্যা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে কথামালায় অংশগ্রহণ করে বিশিষ্টজনরা উপরিল্লিখিত কথাগুলো বলেন। সৃজনে শ্রবণে শ্রাবণসন্ধ্যা উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক, প্রাবন্ধিক আমিনুর রশীদ কাদেরী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় সূচনা বক্তব্য রাখেন মাসিক আন্দরকিল্লা সম্পাদক মুহম্মদ নুরুল আবসার। বর্ষা বিষয়ক কথা মালায় অংশগ্রহণ করেন, বিশিষ্ট লেখিকা ও প্রাবন্ধিক ড. আনোয়ারা আলম, দৈনিক পূর্বকোণের সহকারী সম্পাদক কবি স্বপন দত্ত, দৈনিক প্রথম আলো’র যুগ্মসম্পাদক কবি ওমর কায়সার, দৈনিক আজাদী’র সহযোগী সম্পাদক কবি ও শিশুসাহিত্যিক রাশেদ রউফ, কবি মুশফিক হোসাইন, কবি আশীষ সেন প্রমুখ। বাচিক সংগঠন উচ্চারক আবৃত্তি কুঞ্জ এতে রবীন্দ্রনাথের ‘বিষ্টি পড়ে টাপুরটুপুর’ শীর্ষক বৃন্দআবৃত্তি পরিবেশন করে।

বাচিক শিল্পী মৌসুমী চক্রবর্তী’র সঞ্চালনায় কথামালার ফাঁকে ফাঁকে বর্ষা বিষয়ক কবিতা ও ছড়া পাঠ করেন জাকির হোসেন কামাল, রুহু রুহেল, শুক্লা আচার্য্য, সঞ্চয় কুমার দাশ, আহমেদ মনসুর, ইলিয়াসুর রহমান রুশ্নি, কোহিনুর শাকি, মন্দিরা বিশ্বাস, এ্যানী চৌধুরী, .এস.এম এরফান, করুণা আচার্য্য, কুমুস আক্তার ভান্ডারী, সৈয়দা শাহানা আরা বেগম, মো. জসীম উদ্দিন চৌধুরী, জান্নাতুল ফেরদৌস সোনিয়া, অরুণ কুমার দত্ত, প্রদ্যোত কুমার বড়ুয়া, খালেদ সাইফুল্লাহ, কাজী শাহনাজ সুলতানা প্রমুখ। সবশেষে বর্ষার গান পরিবেশন করেন, শিল্পী ইকবাল হায়দার, কাজল দত্ত, অরুণ দত্ত, পূর্ণিমা দাশ, প্রিয়াংকা দে, হারুনুর রশীদ, সুকান্ত চক্রবর্তী প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

LEAVE A REPLY