লুক রবিনসন। এমন এক রেকর্ড গড়লেন এই বিষ্ময় বালক যা হয়ত নেই পাড়ার ক্রিকেটেও। এক ওভারে ৬ বলেই ৬ উইকেট শিকারের অবিশ্বাস্য এক কীর্তি গড়লেন ইংল্যান্ডের ১৩ বছর বয়সী এই বালক। তাও সবগুলো উইকেটই বোল্ড। ইংল্যান্ডের উত্তরপূর্ব হটনলেস্প্রিং এবং টাইন ও ওয়ারের কাছাকাছি অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব১৩ দলের ফিলাডেলফিয়া ক্রিকেট ক্লাবের ক্রিকেট টুর্নামেন্টে এমন অবিশ্বাস্য পারফরমেন্স করে দলকে জয়ের স্বাদ দিয়েছেন লুক রবিনসন। স্কুল পড়ুয়া এই কিশোরের ফিলাডেলফিয়া ক্রিকেট ক্লাবে অনূর্ধ্ব১৩ দলের হয়ে খেলেন তিনি। গেল সপ্তাহে স্থানীয় একটি ম্যাচে এই ঘটনা ঘটে। যদিও আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নয়, তবুও এটিকে রেকর্ড হিসেবেই দেখছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)

মজার ব্যাপার হলো; রবিনসনের এমন কীর্তি গড়ার দিন মাঠে স্বাক্ষী হয়েছিলেন বাবা স্টিফেন রবিনসন, মা হেলেন, ছোট ভাই ম্যাথু এবং দাদা গ্লেন। রবিনসনের রেকর্ডের ম্যাচে অনফিল্ড আম্পায়ার ছিলেন বাবা স্টিফেন, মা হেলেন ছিলেন স্কোরার, ছোট ভাই ম্যাথু ছিলেন ফিল্ডার ও দাদা গ্লেন বাউন্ডারি লাইনে বসে খেলা দেখছিলেন। পরিবারের সদস্যের এমন অবিশ্বাস্য কীর্তিতে স্বাভাবিকভাবেই খুশী তারা।

প্রথম দুই ওভারে মাত্র এক রান দিলেও একটিও উইকেট পাননি লুক। অনেকটা হতাশ হয়েই সিদ্ধান্ত নেন আর বোলিং করবেন না। এরপর আম্পায়ার হিসেবে দাঁড়ানো বাবার কাছে জানতে চান, উল্টো পাশ থেকে বল করবেন কিনা? কিন্তু বাবা বলেন, ‘শুধু লাইনলেন্থ ঠিক রেখে বল করে যাও।’ ম্যাচ শেষে লুকের বাবা বলেন, ‘আমি তাকে লাইনলেন্থ ঠিক রেখে বল করার পরামর্শ দেই। আর ফলাফল তো দেখতেই পাচ্ছেন। তার প্রতিটা বল পারফেক্ট ছিল। লুক বোলিংয়ে আসার পর মাত্র ১৮ রানেই সব শেষ হয়ে যায় ওদের (প্রতিপক্ষের)।’ সিনিয়র দলের হয়ে খেলা ৪৫ বছর বয়সী স্টিফেন বলেন, ‘এটি অবিশ্বাস্য। আমি ৩০ বছর ধরে খেলছি এবং হ্যাট্টিক হতেও দেখেছি কিন্তু এমনটি হতে দেখিনি। সময় স্থির হয়ে গেলো এবং আমি ভাবলাম, এটা সত্যিই কি ঘটলো?’ লুকের বাবা রবিনসন আরো জানান, ছেলে ইংল্যান্ডের বেশ কয়েকটি নামি ক্লাবে ক্রিকেট শিখছেন। তার স্বপ্ন বড় হয়ে জাতীয় দলে নাম লেখান।

LEAVE A REPLY