বান্দরবান প্রতিনিধি

গত ২৪ ঘন্টার ভারী বর্ষণে পাহাড়ি ঢলে ফের ভয়াবহ বন্যা ও পাহাড় ধসের আশংকা দেখা দিয়েছে বান্দরবান জেলায়। জেলা ও উপজেলা সদরে পৌর কর্তৃপক্ষ এবং প্রশাসনের উদ্যোগে গত শুক্রবার রাত থেকে দফায় দফায় মাইকিং করে পাহাড়ের পাদদেশে বা উঁচুনিচু এলাকায় বসবাসরত পরিবারগুলোকে সতর্ক থাকার এবং দ্রুত নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যেতে নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

ভারী বর্ষণে বান্দরবানরুমা সড়কের দৌলিয়ান পাড়া এলাকায় আবারও পাহাড় ধসে মাটিতে সয়লাব হয়ে পড়েছে সড়কপথ। ফলে শনিবার ভোরবেলা থেকে নিরাপত্তা জনিত কারণে রুমা উপজেলার সাথে বান্দরবান জেলা সদরের মধ্যে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এছাড়াও জেলার নিচু এলাকাসমূহ প্লাবিত হয়েছে। সাংগু ও মাতামুহুরি নদীর পানি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। কৃষিক্ষেত্রে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির শংকা প্রকাশ করেছেন জুমচাষী ও স্থানীয় কৃষকরা। গত শনিবার রাত পর্যন্ত ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকলে জেলায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি ভয়ানক হওয়ার আংশকা রয়েছে বলে জনপ্রতিনিধি এবং প্রশাসন কর্মকর্তারা আশংকা প্রকাশ করেছেন।

বান্দরবান পৌর মেয়র ইসলাম বেবী ও লামা পৌর মেয়র জহিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, সম্ভাব্য বন্যা পরিস্থিতি সামাল দিতে সবরকমের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। বান্দরবান ও লামা শহরে ১৫টি অস্থায়ী বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা বলেন, বন্যাদুর্গত বা দুর্যোগকালীন সময়ে প্রয়োজনীয় ত্রাণ সহায়তা প্রদানে প্রশাসন প্রস্তুতি নিয়েছে।

LEAVE A REPLY