আজাদী প্রতিবেদন

ভূজপুরের দাঁতমারা ইউনিয়নের ঘরকাটা গ্রামের চাঞ্চল্যকর মনোয়ারা হত্যা মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই। গত শনিবার পিবিআই চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ পরিদর্শক মো. মোস্তাফিজুর রহমান এবং পুলিশ পরিদর্শক মোহন লালচন্দের নেতৃত্বে একটি দল কুমিল্লা জেলার কান্দিরপাড় এলাকা ও বুড়িচং থানার ময়নামতি এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আসামিরা হলেন আব্দুল খালেক (২৬) এবং আব্দুস সালাম (৬০)। তাদের দুজনের বাড়ি ভূজপুর থানার ৪নং দাঁতমারা ওয়ার্ডের বান্দরমারা এলাকায়।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত ৩ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভূজপুর থানাধীন বান্দরমারা গ্রামের (ঘরকাটা) বাসিন্দা মনোয়ারা বেগম সন্ধ্যার পর থেকে নিখোঁজ হন। পরবর্তীতে গ্রামবাসী ও তার আত্মীয়স্বজনরা আশপাশে খোঁজাখুঁজি করে বসতঘর হতে আনুমানিক এক কি.মি. পূর্বে রাবার বাগানের ভিতরে মাটি চাপা অবস্থায় মনোয়ারা বেগমের লাশ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় মনোয়ারা বেগমের ভাই আব্দুর রশিদ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে ভূজপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ জানায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তারা দু’জন গত ৩ মার্চ সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে ভিকটিম মনোয়ারা বেগমকে তার বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে বাড়ির পূর্ব পার্শ্বস্থ কাঁঠাল গাছের নিচে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক ভিকটিমকে গলা টিপে ধরে হত্যা করে। এরপর আনুমানিক ১ কি.মি. পূর্বে রাবার বাগানের মাঝে ঢালু জমিতে গর্ত করে লাশ মাটি চাপা দেয়। মাটি চাপা দেওয়ার পূর্বে আসামিরা ভিকটিমের শরীরে থাকা ব্যবহৃত স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। পরদিন হেঁয়াকো বাজারের একটি জুয়েলারি দোকানে বিক্রি করে তারা কুমিল্লায় আত্মগোপন করে।

উল্লেখ্য যে, আসামি আব্দুল খালেক ২০১৪ সালে কুমিল্লা সদর থানাধীন দৌলতপুর এলাকায় তাহার স্ত্রী কোহিনুর বেগমকে গলা টিপে হত্যা করে বিদেশ চলে যায়। এরপর গত সাত মাস পূর্বে বিদেশ থেকে ফিরে ভূজপুরে অবস্থান করে আসছিল।

LEAVE A REPLY